মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

বৃক্ষ রোপন কর্মসূচী

জলবায়ু ও মাটির  গুনে প্রাচীন কাল থেকেই বাংলাদেশ সবুজের সমারহের জন্য সুপ্রসিদ্ধ। আর এ সমারহ শুধুমাত্র গাছের  জন্য সংখ্যাধিক্যে সীমাবদ্ধ ছিলনা প্রজাতীর বৈচিত্রও সমৃদ্ধ ছিল । পরিবেশগত  ভারসাম্য রক্ষার্থে একটি দেশের  আয়াতনের শতকরা ২৫ ভাগ এলাকায় বনভূমী থাকা একান্ত প্রয়োজন  রয়েছে বলে বিশেজ্ঞগণ মনে করেন । কিন্তু বাংলাদেশের আয়তনের তুলনায় বনাচ্ছাদিত এলাকার পরিমান মাত্র ৭.৭ ভাগ এবং ভুমি এলাকার তুলনায় ১৪ শতাংশ বনাঞ্চল ।

 

 

 

ইউনিয়ন পরিষদের ভুমিকা

 

প্রাকৃতিক পরিবেশ সংরক্ষন বনজ দব্রের চাহিদা পুরন ও কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য পরিকল্পিত ভাবে পর্যাপ্ত গাছ লাগানো একান্ত প্রয়োজন । গন পর্যায়ে বৃক্ষ রোপন কেবল পরিবেশগত ভারসাম্য রক্ষার্থে এবং ফলমূল ও বনজ দব্যে দেশকে স্বনির্ভর করে তুলতে সাহায্য করবে না । বরং ব্যক্তি পরিবারের আর্থিক স্বাচ্ছন্দ বিধানে অনুকূল ভুমিকা পালন করে দেশের সার্বিক উন্নয়নে অবদান রাখবে । এ প্রেক্ষিতে ইউনিয়ন পরিষদের দায়িত্বাবলী নিন্মে উল্লেক করা হলো :

 

  • স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) অধ্যদেশ ১৯৮৩ এর ৩৮ (ক) ধারার প্রেক্ষিতে পরিবেশ সংরক্ষন ও বৃক্ষ রোপন সংক্রান্ত স্ট্রান্ডিং কমিটি গঠন করা
  • সার্বিক ভাবে বৃক্ষ রোপন ও সংরক্ষন করা বিশেষ করে জনপথ জনসাধারনের রাস্তা এবং সমাগমের জায়গায় বৃক্ষ রোপন ও সংরক্ষন করা
  • গ্রামের জনগনকে বৃক্ষ রোপনের গুরুত্ব সম্পর্কে অবহিত এবং তাদেরকে উদ্বুদ্ধ করা
  • উন্নত জাতের গাছের চারা সংগ্রহের জন্য জনগনকে পরামর্শ প্রদান করা ।


Share with :

Facebook Twitter